লক্ষ্মীপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে মারধর

লক্ষ্মীপুরে জোরপূর্বক জমি দখলে বাধা দেওয়ায় আবদুর রহমান নামে এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে মারধর করা হয়েছে।

শনিবার (৮ মে ) দুপুরে আবদুর রহমানের বাবা শিক্ষক আবদুল কাদের পাটওয়ারী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এতে জিয়াউল হক রুবেলের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১৫-১৬ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

আহত আবদুর রহমান ঢাকার নর্দান ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের ছাত্র ও সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চরমন্ডল গ্রামের বাসিন্দা। অভিযুক্ত রুবেল সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়নের পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রামের মৃত আবু ইউছুফের ছেলে।

জানা গেছে, মুন্সিরহাট শাহাদাত মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবদুল কাদের ও অভিযুক্ত রুবেলদের বাড়ি পাশাপাশি। দীর্ঘদিন ধরে তাদের দুই পক্ষের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। বৃস্পতিবার (৬ মে) রুবেল জোরপূর্বক বালু ফেলে কাদেরের জমি দখল করার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে রুবেল ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

পরে শুক্রবার (৭ মে) দুপুরে স্থানীয় রানীর হাটে কাদেরের ছেলে আবদুর রহমানের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে রুবেল ও তার লোকজন। কিছু বুঝে উঠার আগেই তারা আবদুর রহমানকে এলোপাথাড়ি মারধর করে। এসময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে আহত অবস্থায় তাকে ফেলে রেখে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

শিক্ষক আবদুল কাদের পাটওয়ারী বলেন, রুবেল আমার জমি জোরপূর্বক দখলে নিতে বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করছে। আমার নির্মাণাধীন দোকানঘর ভাঙচুর করেছে। এরপরও জমি দখলে নিতে না পারায় আমার ছেলে রুবেলকে লোকজন দিয়ে মারধর করেছে। আমার ছেলেকে মারধরের ঘটনার বিচার চাই।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আনোয়ার হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে এবং উভয়পক্ষকে রবিবার থানায় ডেকেছি। বিস্তারিত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন :