কুড়িগ্রামবাসী পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার পিসিআর ল্যাব

কুড়িগ্রাম জেলার প্রায় ২০ লাখ মানুষের দীর্ঘ দিনের দাবি অবশেষে পূরণ হতে চলেছে। প্রতীক্ষিত পলিমারেজ চেইন রিএ্যাকশন (পিসিআর) ল্যাব পেতে যাচ্ছে কুড়িগ্রাম জেলাবাসী।

স্থানীয় এমপির হস্তক্ষেপে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার পিসিআর ল্যাবের সুবিধা দ্রুত বাস্তবায়ন হবে। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপন সংক্রান্ত সরকারের একটি নির্দেশনাপত্র স্বাস্থ্য বিভাগ সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা পেয়েছেন।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শহিদুল্লাহ লিংকন চিঠি প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, দ্রুত পিসিআর ল্যাব স্থাপিত হলে করোনা পরীক্ষায় জেলাবাসীর দীর্ঘ দিনের দুর্ভোগ লাঘব হবে। জেলা প্রশাসক, স্বাস্থ্য বিভাগ, কুড়িগ্রাম উন্নয়ন ফোরাম সহ দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের দফায় দফায় চিঠি ও ব্যক্তিগত যোগাযোগ করার সাথে যুক্ত হয়ে কুড়িগ্রাম ২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব পনির উদ্দিন আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করলে পিসিআর ল্যাব বসানোর কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশনা পত্র পান সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।  

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের করোনার শুরু থেকে ৫ জুন-২১ জুন পর্যন্ত করোনা পরীক্ষার জন্য ৮২৮৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর পিসিআর ল্যাবে প্রেরণ করা হয়। এখন পর্যন্ত ১২৫৬ জনের করোনা শনাক্ত হলেও সুস্থ হয়েছেন ১১৬৮ জন। করোনায় আক্রান্ত হয় আইসোলেশনে রয়েছেন ৬৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৪ জন। 

সীমান্তবর্তী জেলা কুড়িগ্রামে রয়েছে ২৭৮ কিলোমিটার ব্যাপী সীমানা এবং সীমান্তের অধিকাংশ স্থান উন্মুক্ত। অধিকাংশ জায়গায় ভারতীয় ও বাংলাদেশীদের মধ্যে রয়েছে সম্প্রীতির বন্ধন। করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতীয় ধরণ ছড়িয়ে পড়ার আশংকায় আতংকিত এ জেলার মানুষ।

এদিকে, গত কয়েকদিনে করোনা পরীক্ষায় আক্রান্তের হার আশংকাজনক বৃদ্ধি পাওয়ায় সচেতন মহলে ভীতির সঞ্চার হয়েছে। নতুন করে সাংবাদিক, শিক্ষক সহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা আক্রান্ত হওয়ায় টনক নড়ে প্রশাসন সহ রাজনৈতিক মহলে। জেলার সর্বোচ্চ মহল ও কুড়িগ্রাম উন্নয়ন ফোরামের তরফ থেকে মানববন্ধনসহ আন্দোলনের ঘোষণার গুঞ্জন তৈরি হলে আওয়াজে তড়িঘড়ি করে জেলা করোনা কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, সিভিল সার্জন ডাঃ হাবিবুর রহমান জরুরী চিঠি চালাচালির পাশাপাশি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ শুরু করেন।

এছাড়াও কুড়িগ্রাম ২ আসনের সংসদ সদস্য অবহেলিত কুড়িগ্রাম জেলার মানুষকে অতি মহামারি করোনা থেকে বাঁচাতে সরকারের সকল দপ্তরের ডিও লেটার সহ ব্যক্তিগত যোগাযোগ করেন। সীমান্ত জেলা কুড়িগ্রামে ভারতীয় ভেরিয়েন্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় দিশেহারা হয়ে যায় স্বাস্থ্য বিভাগসহ প্রশাসন।

তাই করোনা পরিস্থিতি নিরসনের জন্য স্থানীয় এমপি আলহাজ্ব পনির উদ্দিন আহমেদ করোনা মোকাবেলায় জরুরী ভিত্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এর কিছু পরেই ফলাফল পাওয়া শুরু। আবেগ তাড়িত হয়ে পনির উদ্দিন আহমেদ এমপি জানান, কুড়িগ্রাম জেলাবাসীর জন্য শেখ হাসিনার মমত্ববোধ দেখে অবাক হই, কুড়িগ্রামে পিসিআর ল্যাব নেই শুনেই প্রধানমন্ত্রী দ্রুত সংশ্লিষ্ট সব দপ্তরে নির্দেশনা দেন। প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনার ফলে কুড়িগ্রাম জেলাবাসী পাচ্ছেন পিসিআর ল্যাব। কুড়িগ্রাম জেলাবাসীকে বিশেষ উপহার পিসিআর ল্যাব দেয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন এমপি আলহাজ্ব পনির উদ্দিন আহমেদ।

মন্তব্য লিখুন :