লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে হাবিপ্রবি

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের উর্দ্ধগতির কারণে আগামীকাল ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বেশকটি বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। সরকারি নিষেধাজ্ঞা মেনে নীতিমালা অনুযায়ী হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) কার্যক্রম সীমিত পরিসরে চলমান থাকবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা মোঃ ফজলুল হক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বিদ্যমান পরিস্থিতি পর্যালোচনায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কর্তৃক গত ২৯-০৩-২০২১ তারিখের ০৩.০০.২৬৯০.০৮২.৪৬.০২৫.২০২১.১২৪ নং স্মারকে ১৮ দফা নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। বর্ণিত স্মারকের অনুবৃতিক্রমে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ০৪-০৪-২০২১ তারিখের ০৪.০০.০০০০.৫১৪.১৬.০০৩.২০.১১১ নং স্মারক অনুযায়ী ০৫-০৪-২০২১ ইং হতে ১১-০৪-২০২১ পর্যন্ত মেয়াদে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম সীমিত পরিসরে চলমান থাকবে। আবাসিক হলসমূহ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

তবে অতি জরুরী এবং অপরিহার্য কার্যক্রম সীমিত পরিসরে চালু থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক কাজে সম্পৃক্ত ব্যক্তিবর্গ সমূহ সকল শিক্ষক কর্মকর্তা ও কর্মচারী কর্মস্থল (দিনাজপুর) ত্যাগ করবেন না এবং মোবাইল ফোন চালু রাখবেন যাতে জরুরি প্রয়োজনে কর্মস্থলে উপস্থিত হয়ে কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মোতাবেক দায়িত্ব পালন করতে পারেন। সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ চলমান গবেষণা কার্যক্রম চালাতে পারবেন। শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে যথারীতি চালু থাকবে।

উল্লেখ্য, এ সময়ে পরিচ্ছন্নকর্মী জরুরী সেবাসমূহ চালু থাকবে এবং মেডিকেল সেন্টার খোলা থাকবে, ডাক্তারগণ জরুরী টেলিমেডিসিন সেবা প্রদান করবেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিবহন ব্যবস্থা চালু থাকবে। বহিরাগত কোন ব্যক্তিকে ক্যাম্পাসে প্রবেশ ও অবস্থান না করার জন্য নির্দেশ করা হলো। গর্ভবতী /অসুস্থ/ বয়স ৫৫- উর্ধ্ব শিক্ষক/কর্মকর্তা/ কর্মচারীরা বাড়িতে অবস্থান করে কর্ম সম্পাদন করবেন।

এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মোঃ ফজরুল হক বলেন, সরকারি বিধি নিষেধ দেশের প্রত্যেকটি সচেতন নাগরিকের মেনে চলা উচিত। শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে চালু রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে আজকের বিজ্ঞপ্তিতে। আশা করছি হাবিপ্রবির সম্মানীত শিক্ষকবৃন্দ শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অনলাইন ক্লাস র্কাযক্রম যথারীতি চালু রাখবেন।

মন্তব্য লিখুন :