ঢাবি আবাসিক হল খুলছে আজ

দীর্ঘ ১৮ মাস পর আজ মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আবাসিক হল খুলে দেওয়া হচ্ছে। করোনাভাইরাসের এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে স্নাতক শেষ বর্ষ ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীরা আবাসিক হলে ওঠার সুযোগ পাবেন। এদিকে করোনা থেকে সুরক্ষায় ঢাবি কর্তৃপক্ষ সোমবার থেকে ক্যাম্পাসে অস্থায়ী টিকা ক্যাম্প চালু করেছে। প্রথম দিনে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ২৬৫ জন টিকা নিয়েছেন।

ঢাবি উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে আবাসিক হলগুলো প্রস্তুত। ইতোমধ্যে হল প্রশাসন সংস্কার কাজসহ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবেন। তিনি আরও বলেন, করোনা সংক্রমণ কমে আসায় পূজার ছুটির পর এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে যে কোনো বর্ষের শিক্ষার্থী হলে উঠতে পারবেন। এরপর সশরীরে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করা হবে।

সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মজিবুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে হল প্রশাসন সম্পূর্ণ প্রস্তুত। শিক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য হলে সংস্কার কাজ শতভাগ সম্পন্ন করা হয়েছে। করোনা-পরবর্তী সময়ে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা এবং আবাসিক হলে জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে হল প্রশাসন সংস্কার কর্মসূচি হাতে নিয়েছিল। ওয়াশরুম, পানি ও বিদ্যুতের লাইন এবং ঝরাজীর্ণ দেওয়াল সংস্কার করা হয়েছে। হলের রুম রঙ করা হয়েছে।

আবাসিক হল খুলে দেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী মো. ইমন বলেন, করোনার কারণে লম্বা একটা সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে ছিলাম। এসএম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী হায়দার ওমর বলেন, দীর্ঘদিন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দূরে থাকায় অনেক শিক্ষার্থী মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। শুধু অনার্স-মাস্টার্স নয়, সব শিক্ষার্থীকেই আবাসিক হলে ওঠার সুযোগ দেওয়া উচিত এবং অনেক আগেই আবাসিক হল খুলে দেওয়া উচিত ছিল।

দেশে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে ২০২০ সালের মার্চে অন্য সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ঢাবি কর্তৃপক্ষ শ্রেণি কার্যক্রম ও আবাসিক হল বন্ধ করে। এরপর চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার জন্য ১৩ মার্চ থেকে আবাসিক হল খোলার সিদ্ধান্ত নেয় ঢাবির একাডেমিক কাউন্সিল। যদিও করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে তা ৫ অক্টোবর করা হয়।

মন্তব্য লিখুন :