গোপনে ইসরাইলি বাহিনীকে জায়গা দিয়েছে আজারবাইজান

ইরান ও আজারবাইজানের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মধ্যে ইরান অভিযোগ তুলেছে, আজারবাইজান সরকার গোপনে ইসরাইলি বাহিনীকে আশ্রয় দিয়েছে। তবে এই অভিযোগ প্রত্যাখান করেছে বাকু।

গত সপ্তাহে ককেশাস অঞ্চলের মিত্র দেশগুলোকে সঙ্গে নিয়ে ইরান, আজারবাইজান সীমান্তে বড় ধরনের সামরিক মহড়া শুরু করেছ ইরান। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম প্রভাবশালী দেশটির অভিযোগ, আজারবাইজান ইহুদি সেনাদের আশ্রয় দিয়েছে।

তবে সোমবার আজারবাইজান এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। আজারবাইজানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেইলা আব্দুল্লাইভা বলেন, আজারবাইজান-ইরান সীমান্তে কোনো তৃতীয় পক্ষের উপস্থিতি নেই। ইরানের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

গত বছর নাগোর্নো কারবাখ নিয়ে আর্মেনিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ জড়ায় আজারবাইজান। যুদ্ধক্ষেত্রে আজারবাইজান ইসরাইলের তৈরিকৃত কামিকাজে ড্রোন ব্যবহার করে। এটা দেখে ইরান ক্ষোভে ফেটে পড়ে।

কৌশলগত কারণে ইসরাইল ককেশাস অঞ্চলের আজারবাইজানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রেখে চলে। তেল আবিব আজারবাইজানকে সামরিক সরঞ্জাম, ড্রোনসহ বিভিন্ন প্রযুক্তি দিয়েছে। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করেই গত বছর আর্মেনিয়ার বিরুদ্ধে সফলতা পায় আজেরি বাহিনী।

মন্তব্য লিখুন :