ফরিদপুরে জেনারেল হাসপাতালে জনবল সংকট: বঞ্চিত চিকিৎসাসেবা

ফরিদপুরে স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত কয়েক হাজার সাধারন জনগন। ১৯১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত ফরিদপুরের ঐতিহ্যবাহী জেনারেল হাসপাতালটি। ফরিদপুর শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থান এই জেনারেল হাসপাতালটির।

 ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত পরিপূর্ণ স্বাস্থ্য সেবা পেয়েছে  ফরিদপুরের জনগন কিন্তু তারপর থেকে শুরু হয়েছে স্বাস্থ্য সেবার তালবাহানা, ডাক্তার ও জনবল সংকট।

১১ জন কনসালটেন্ট ডাক্তারের মধ্যে বর্তমানে রয়েছে ৩ জন কনসালটেন্ট। তারা হলেন সিনিয়র কনসাল্টেন্ট মেডিসিন, জুনিয়র কনসালটেন্ট গাইনী ও জুনিয়র কনসাল্টেন্ট অজ্ঞান।

৩৮ জন মেডিকেল অফিসারের মধ্যে রয়েছে ১১ জন। সিনিয়র ও জুনিয়র স্টাফ নার্স সহ ২য়, ৩য় ও ৪র্থ শ্রেনীর সর্বমোট ১৪৩ জন থাকার কথা থাকলেও কর্মরত আছে ১০৯ জন। এই জনবল সংকটের কারণে প্রতিদিন কয়েকশত জনগন স্বাস্থ্য সেবা না পেয়ে বাধ্য হয়ে বেসরকারী হাসপাতালগুলো থেকে চিকিৎসা সেবা নিতে বাধ্য হোন।

ফরিদপুরের সাধারন জনগনের দাবি দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে বিভিন্ন কারণে স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত কেন? এ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি দেবার জন্য অনুরোধ জানান।

ফরিদপুর সিভিল সার্জন অফিসের প্রধান সহকারী জানায়, আমরা প্রতিনিয়ত ডাক্তারসহ জনবল সংকট তালিকা স্বাস্থ্য বিভাগে প্রতিমাসে প্রতিবেদন পাঠিয়ে থাকি এবং শুন্য পদ গুলি পূরণ করার জন্য অনুরোধ জানাই।

মন্তব্য লিখুন :