সুখী হওয়ার ১০ উপায়

"মানুষ যতটা সুখী হতে চায়, সে ততটাই হতে পারে। সুখের কোনো পরিসীমা নেই। ইচ্ছে করলেই সুখকে আমরা আকাশ অভিসারী করে তুলতে পারি"- আব্রাহাম লিংকন

সুখ অনেক টা আপেক্ষিক বিষয়। কেউ বিলাসবহুল গাড়ি বাড়ি, পোলাও-কোরমা পেয়েও দিনশেষে দীর্ঘশ্বাস ছাড়ে, আর কেউবা কুঁড়েঘরে সামান্য পান্তাভাত খেয়েও তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলে সুখনিদ্রাতে যায়। আসলে আমার যেটুকু আছে, সেটুকু নিয়ে সন্তুষ্ট হলেই প্রকৃত সুখ খুঁজে পাওয়া যায়। আর এই সন্তুষ্ট হওয়া নির্ভর করে নিজের উপর। আর নিজেকে খুশি করা নিজের হাতে। যা পাবে তা এইটুকুই। যা চাইবে তার শেষ  নেই। আর সেই অশেষের দিকে তাকালে মনে হবে যেন কিচ্ছু পেলাম না। কিছুই হলোনা। আর এই "না" বাচক দৃষ্টিভঙ্গিই অসুখী হওয়ার প্রথম এবং প্রধান উপকরণ। তাই সুখী হতে হলে প্রথমেই নিজেকে এই নেতিবাচক শব্দ থেকে দূরে রাখতে হবে।

সুখী হওয়ার কিছু কৌশল নিচে উল্লেখ করা হলো:

১. যারা আপনাকে দমিয়ে রাখতে চাইয়, তাদের এড়িয়ে চলুন।

২. যাকে পরিবর্তন করতে পারবেন না, তার সাথে মানিয়ে নিন।

৩. প্রতিদিন নিজের একটি প্রিয় গান গাইতে থাকুন।

৪. কাছের মানুষের সাথে সময় কাটান। তাদের সাথে কথা বললে মন হালকা থাকবে।

৫. প্রতিদিন একটু হাঁটুন এবং প্রকৃতিকে উপভোগ করুন।

৬.পথ চলার সময় অন্যের সাথে সাক্ষাৎ হলে মুচকি হাসুন। এতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন।

৭. অতীতের সুখস্মৃতিগুলো ভাবুন, তাহলে অতীত আপনার বর্তমানকে বিরক্ত করবেনা।

৮. অন্যরা আপনাকে নিয়ে কি ভাবছে সেদিকে মনযোগ দেবেন না।

৯. মনে রাখবেন, আপনি ছাড়া আপনার সুখে কেউই ভাগ বসাবে না।

১০. নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করবেন না। আপনি এক, অনন্য এবং বিশেষ একজন। 

শরীর ও মনের সুখ-শান্তির জন্য বহু টাকা পয়সা, দামি রেস্টুরেন্টে এ চেক -ইন, মাল্টিপ্লেক্স এ সিনেমা দেখা, দামি শপিং মলে শপিং, স্বপ্নের দেশে লম্বা অবকাশ-যাপন কোনটাই কার্যকর না-ও হতে পারে। আবার নিত্যদিনকার এমন কিছু সাদাসিধে ব্যাপার আছে যা হয়তো একজন মানুষের জীবনকে সুখী, স্বস্তিকর এবং সুন্দর করে তুলতে পারে। তাই নিজেই নিজের সুখী থাকার রহস্য খুঁজে বের করতে হবে, আনন্দে ভরিয়ে তুলতে হবে নিজের জীবনকে।

লেখকঃ প্রজ্ঞা ব্যানার্জী, শিক্ষার্থী, সমাজকর্ম বিভাগ, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।


মন্তব্য লিখুন :