ডিজিটাল ডাকঘরে সুবিধাভোগীর ঢল

দেশের প্রতিটি প্রান্তে তার সুফল বিস্তার করতে শুরু করেছে সরকারের “পোস্ট ই-সেন্টার ফর রুরাল ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প” যা বর্তমানে ডিজিটাল পোস্ট অফিস নামে অধিক পরিচিত। প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে মোট ৮৫০০ ডিজিটাল পোস্ট অফিস স্থাপন করা হয়েছে।

ডিজিটাল ডাকঘর; গ্রাম উন্নয়নের কারিগর - এই স্লোগানকে ধারণ করে এই প্রকল্প যাত্রা শুরু করে। মূলত প্রত্যন্ত এলাকায় তথ্য ও প্রযুক্তির সেবা পৌঁছে দেওয়াই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। কিছুটা দেরিতে হলেও ডাক বিভাগের এই যুগান্তকারী পদক্ষেপের সুফল পেতে শুরু করেছে জনগণ। 

নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলা ডিজিটাল পোস্ট অফিসে (লক্ষ্মীপাশা পোস্ট অফিসে) গড়ে উঠেছে কম্পিউটার স্কুল, যা কর্মমুখী ডিজিটাল শিক্ষা প্রদানের জন্য কাজ করে যাচ্ছে নীরবে। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ নানা বয়স এবং পেশার অসংখ্য প্রশিক্ষণার্থী প্রতিদিন কম্পিউটার স্কুলে আসছে কর্মমুখী এই কম্পিউটার শিক্ষা নিতে। 

প্রতিষ্ঠানে আগত প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকা নাজমুন্নাহার বলেন , "নড়াইলে এর আগে এরকম কোনও প্রতিষ্ঠান না থাকায় ইচ্ছা সত্ত্বেও কম্পিউটার শেখার সুযোগ হয়নি। সরকারি ব্যবস্থাপনায় কম্পিউটার স্কুল এর মত এমন একটি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পেরে আমি সন্তুষ্ট"। 

গৃহিনী তাবাসসুম মীম বলেন, "চাকরির বয়স শেষ হয়ে যাওয়ার পর থেকে আউটসোর্সিংয়ের প্রচণ্ড রকমের ইচ্ছা পোষণ করছিলাম। কিন্তু ভালো কোনও প্রতিষ্ঠান না থাকায় এতদিন সেই ইচ্ছা পূরণ করতে পারিনি। ডাক বিভাগকে ধন্যবাদ যে কম্পিউটার স্কুল এর মত একটি প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে উপহার দিয়েছে।" 

কম্পিউটার স্কুল এ বর্তমানে ৬ মাস মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন এবং প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স চলমান রয়েছে। এছাড়া আরও কয়েকটি প্রফেশনাল কোর্স প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠান হওয়ায় বাইরের যেকোনো প্রতিষ্ঠানের চেয়ে এখানে কোর্স ফি অনেক কম। ডিজিটাল ডাকঘরে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ছাড়াও স্বল্পমূল্যে অনলাইন ভিত্তিক যাবতীয় সেবা প্রদানের পাশাপাশি এটুআই  এর বিভিন্ন সেবা প্রদান করা হয়। এছাড়া ই-কমার্সের সেবাও এখানে পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া ডাক বিভাগের সাথে চুক্তিবদ্ধ ব্যাংক এশিয়ার (ডিজিটাল ব্যাংকিং) যাবতীয় সেবা মিলছে ডিজিটাল ডাকঘরে। 

মন্তব্য লিখুন :