ই-বাইক আনছে ওয়ালটন, কিলোতে খরচ ১৫ পয়সা

বাইক কেনার সামর্থ্য থাকলেও তেল নিয়ে টেনশনে থাকতে হয় বাইক কিনতে আগ্রহীদের। অনেকে আবার বাইক কিনে ফেলে রাখেন গ্যারেজে। তবে সুখবর নিয়ে বাংলাদেশের বাজারে আসছে ইলেকট্রিক বাইক (ই-বাইক) বা স্কুটার। এতে প্রতি কিলোমিটারে খরচ পড়বে মাত্র ১০-১৫ পয়সা। যুগান্তকারী এই বাহন আনছে দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।

জানা যায়, ওয়ালটনের লোগোযুক্ত এ ক্যাটাগরির নতুন এই পণ্যের ব্র্যান্ডিং নাম তাকিওন (TAKYON)। প্রাথমে বাজারে আসবে দু’টি মডেলের (তাকিওন ১.০০ ও তাকিওন ১.২০) ই-বাইক।

নতুন ই-বাইক নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ সৃষ্টি হওয়ায় তারা বাইক দু’টি বাজারে আসার অপেক্ষায় রয়েছেন। এর দাম এখনো নির্ধারণ না হলেও দেশীয় ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতা বিবেচনা করে সাশ্রয়ী রাখার কথা জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বাইকের প্রোডাক্ট ম্যানেজার কায়কোবাদ সিদ্দিকী জানান, দুটি বাইকই দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের, যা গ্রহকদের নজর কাড়বে। শহরাঞ্চলে ট্রাফিক জ্যামের কারণে কম খরচে যাতায়াত সহজ বাহন হবে নতুন এই বাইক।

তাকিওন ১.০০ মডেলের বিষয়ে তিনি জানান, শক্তিশালী ১.২ কিলোওয়াট হাব মোটরের নতুন প্রযুক্তির গ্রাফিন লেড এসিড ব্যাটারি রয়েছে। একবার ফুল চার্জে দিয়ে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৫০ কিলোমিটার গতিতে ৬০-৭০ কিলোমিটার পথ চলা যাবে।

তাকিওন ১.২০ মডেলের ব্যাপারে কায়কোবাদ সিদ্দিকী জানান, বশের (BOSCH) মোটরের সঙ্গে সহজে বহনযোগ্য পোর্টেবল লিথিয়াম ব্যাটারি থাকবে। মাত্র ৯ কেজি ওজনের এ ব্যাটারি একবার চার্জে ৫০-৬০ কিলোমিটার চলবে, ঘণ্টায় সর্বোচ্চ গতি হবে ৪৫ কিলোমিটার।

তাকিওন ই-বাইকে পোর্টেবল চার্জার থাকায় তা ঘরে ব্যবহৃত ২২০ ভোল্টের বৈদ্যুতিক লাইন থেকেই চার্জ দেয়া যাবে। আর বাইকের পারফরমেন্স হবে ১০০ সিসির সমান। এ ছাড়া ডুয়াল হাইড্রোলিক ডিস্ক ব্রেক, টিউবলেস টায়ার, এলসিডি স্পিডোমিটার ও এলইডি লাইটিং থাকছে দুটি মডেলেই।

মন্তব্য লিখুন :